এবার নিষেধাজ্ঞায় মোহাম্মদ শহীদ ও আরাফাত সানি


মোহাম্মদ শহীদ

জাতীয় ক্রিকেট লীগে (এনসিএল) মাঠে মারামারির ঘটনায় এক বছরের স্থগিত নিষেধাজ্ঞা পেয়েছেন ঢাকা বিভাগের মোহাম্মদ শহীদ ও আরাফাত সানি জুনিয়র। এই দুজনের খেলা চালিয়ে যেতে কোনো বাধা নেই। তবে এই বছরের মধ্যে আর কোনো অপরাধ করলে নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে।

আর এই দুই খেলোয়াড়ের ক্ষেত্রে শুধু মাঠের ঘটনাই নয় মাঠের বাইরের আচরণও বিবেচ্য হবে। একই ঘটনায় গত মাসে শাহাদাত হোসেন পাঁচ বছরের নিষেধাজ্ঞা পান। যার মধ্যে দুই বছরের স্থগিত নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এছাড়াও ৩ লাখ টাকা জরিমানা করা হয় শাহাদাতকে।

খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে এনসিলের পঞ্চম রাউন্ডের ম্যাচে খুলনা বিভাগ ও ঢাকা বিভাগ মুখোমুখি হয়। সেখানে ম্যাচের দ্বিতীয় দিন মাঠে বল শাইনিং করা নিয়ে ঢাকা বিভাগের শাহাদাত মাঠের মধ্যে আরাফাতকে চড়-থাপ্পড় মারা শুরু করেন।

শাহাদাতকে তখনই মাঠ থেকে বের করে দিয়ে অভিযোগ আনা হয়। পরবর্তীতে শুনানিতে জানা যায় ঘটনার সূত্রপাত ঘটায় শহীদ। তাই শহীদ ও আরাফাত দুজনকেই শুনানির জন্য ডাকা হয়। সেখানে শুনানি শেষে শহীদের পাশাপাশি আরাফাতের দায়ও খুঁজে পাওয়া যায়। ফলে লেভেল টু এর ধারায় শাস্তি দেয়া হয় তাদের।

এই নিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) টেকনিক্যাল কমিটির প্রধান মিনহাজুল আবেদিন নান্নু সংবাদমাধ্যমে বলেন, ‘মোহাম্মদ শহীদ ও আরাফাত সানি জুনিয়র দুজনে লেভেল টু অপরাধে দায়ী। তাই তাদের এক বছরের জন্য স্থগিত নিষেধাজ্ঞা দেয়া হলো। তারা এখন খেলা চালিয়ে যেতে পারবে। তবে তাদের মাঠের ভেতর এবং বাইরের আচরণ কড়া নজরদারিতে থাকবে। তারা যদি আর কোনো অপরাধে জড়িয়ে পড়ে, যে কোনো জায়গায়। তখন থেকে এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে।’
মতামত দিন