জর্জ ফ্লয়েড হত্যাকাণ্ড

যুক্তরাষ্ট্রে বিক্ষোভ, ভাঙচুর ও লুটপাটের কারণে বন্ধ হলো অ্যাপল স্টোর


ভাঙচুর

করোনা পরিস্থিতিতে দীর্ঘদিন বন্ধ রাখার পর সবে মাত্র বিক্রয়কেন্দ্রগুলো খুলতে শুরু করেছিল অ্যাপল। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রে চলমান বিক্ষোভের মুখে পড়ে আবারও সেগুলো বন্ধ করে দিতে বাধ্য হলো কোম্পানিটি।

প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট সিনেট জানায়, যুক্তরাষ্ট্রে মিনিয়াপোলিসে পুলিশের হাতে জর্জ ফ্লয়েড নামে এক কৃষ্ণাঙ্গ নাগরিক নির্মমভাবে নিহত হয়।ওই ঘটনায় বর্ণবৈষম্যের প্রতিবাদে জ্বলে উঠেছে যুক্তরাষ্ট্র, অন্তত ৪০টি দেশে কারফিউ জারি করা হয়েছে।

কয়েকদিন ধরে চলমান বিক্ষোভে বিভিন্ন শহরে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ, অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। এ ধরনের হামলার কবলে পড়েছে অ্যাপল স্টোরও। চুরি ও ক্ষয়ক্ষতির শিকার হয়েছে কোম্পানিটি।

অ্যাপল এক বিবৃতিতে জানায়, আমাদের টিমের স্বাস্থ্য ও সুরক্ষার বিষয়টি বিবেচনা করে রবিবার যুক্তরাষ্ট্রে আমাদের বিক্রয়কেন্দ্র বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। পাঁচ দিন আগে যুক্তরাষ্ট্রের ২১টি অঙ্গরাজ্যে নিজেদের ২৭১টি বিক্রয়কেন্দ্রের মধ্যে ১০০টি খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত জানিয়েছিল কোম্পানিটি। মার্চের মাঝামাঝি থেকে করোনা পরিস্থিতির কারণে বিক্রয়কেন্দ্রগুলো বন্ধ রাখা হয়েছিল।

ads