গণজমায়েত নিষেধ থাকলেও চায়ের স্টলে শালিস, ছবি তুলতে গেলে সাংবাদিককে হুমকি


গণজমায়েত

সারাদেশে যখন করোনাভাইরাস এর প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে সরকার সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে দিনরাত কাজ করছে। গণজমায়েত একেবারে নিষেধ থাকলেও চায়ের দোকানে স্টলে শালিস। একে বারে নারী পুরুষ মিলে ভির জমায়েত করে বসে গ্রাম্য শালিস দরবার। এসময় স্থানীয় সাংবাদিক ভিডিও এবং ছবি তুলতে গেলে হুমকি-ধমকি দিয়ে ভিডিও বন্ধ করে দেওয়া হয়।

ঘটনাটি নেত্রকোনা জেলার দুর্গাপুরের প্রশাসনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে ররিবার (৫ এপ্রিল) বিকালে পৌর শহরের চরলেংগুড়া গ্রামে চায়ের স্টলে শালিস বিচারে বসেন স্থানীয় নেতারা।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত কয়েক দিন আগে খেলাধুলাকে কেন্দ্র করে ঐই গ্রামে দুই গ্রুপের মাঝে মারামারি হয়। বিষয়টি স্থানীয় কয়েকজন নেতার নেতৃত্বে মীমাংসা করার জন্য প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে গণজমায়াতের মাধ্যমে বিচারে বসেন তারা । এই বিচার দেখে ভিড় জমায় গ্রামের সাধারণ প্রায় ৩০/৪০ জনের মতো নারী পুরুষ । অনেকেই করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষায় কোন মাস্ক কিংবা হাতে গ্লাভস কিছুই পড়েন নি। বরং খালি গায়ে বিচার শুনতে ভিড় জমিয়েছেন তারা। এসময় ছবি ভিডিও তুলতে গেলে বাধার মুখে পড়েন স্থানীয় সাংবাদিক দেওয়া হয় হুমকি-ধমকি।

পরে বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফারজানা খানম কে জানালে তিনি তাৎক্ষনিক গনজমায়েত বন্ধ করে দেন।

হুমায়ুন কবির/এসএম/আওয়াজবিডি

ads