‘কিছু পুলিশ ধরেই নিয়েছে যে অপরাধ, দুর্নীতি করলে কিছু হয় না’


বিএনপির আইনজীবীকে আদালত 'আমারও কাঁপাকাঁপি শুরু হয়ে গেছে'

ইব্রাহীম খলিল নামে সোনালি ব্যাংকের এক কর্মকর্তার কাছে চাঁদা দাবি, মারধর ও হেনস্তার অভিযোগে উত্তরা পূর্ব থানার এএসআই মোস্তাফিজসহ জড়িত পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে ১৫ দিনের মধ্যে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

ওই ঘটনায় ক্ষুব্ধ হাইকোর্ট বলেন, পাঁচ ভাগ পুলিশের অপকর্মের কারণে গোটা পুলিশ বাহিনীর দুর্নাম হচ্ছে। পুলিশের কিছু লোক এ ধরনের বিব্রতকর কাজ করে। আদালত আরও বলেন, কিছু পুলিশ ধরেই নিয়েছে যে অপরাধ, দুর্নীতি করলে কিছু হয় না।

এ সংক্রান্ত একটি রিট আবেদনের ওপর শুনানি নিয়ে সোমবার বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ রুলসহ এ নির্দেশ দেয়। তাদের বিরুদ্ধে কি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে তা ওই সময়ের মধ্যে পুলিশের মহাপরিদর্শককে জানাতে বলা হয়েছে।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী ইসমাইল হোসেন ভূঁইয়া ও আবুল কালাম। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ বি এম আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার।

রিটকারীর আইনজীবী জানান, গত ২৭ জুন রাতে সোনালি ব্যাংকের মতিঝিল শাখার জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা ইব্রাহিম খলিল এক সহকর্মীকে নিয়ে উত্তরার একটি রেস্টুরেন্টে রাতের খাবার শেষে বাসায় ফিরছিলেন। বিমানবন্দর রেলস্টেশনে আসার পথে কসাই বাড়ি রেল ক্রসিংয়ের কাছে এএসআই মোস্তাফিজ ও আরও দুজন পুলিশ সদস্য (একজন এপিবিএন পুলিশের সদস্য) তাদের পথরোধ জিজ্ঞাসাবাদের নামে অশ্লীল ভাষায় গালাগালি করে ২০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। টাকা না দিলে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে যাওয়াসহ আদালতে চালান দেওয়ার ভয় দেখায়।

এরপর ইব্রাহিমের সহকর্মী তাকে ১ হাজার দিয়ে সঙ্গে আর টাকা নেই বলে জানায়। টাকা কম দেওয়ায় ইব্রাহিমকে মারধর করে থানায় নিয়ে যাওয়ার জন্য টানা-হিঁচড়া করতে থাকে পুলিশ সদস্যরা। একপর্যায়ে ওই ব্যাংক কর্মকর্তা এক বন্ধুর মাধ্যমে আরও ৫ হাজার টাকা আনিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেন। বাকি টাকা পরদিন দেওয়ার শর্তে রাত ১২টার দিকে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয় এবং পুলিশের মারধরে আহত ইব্রাহিমকে কুর্মিটোলা হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়।

রিটকারীর আইনজীবী ইসলামাইল হোসেন ভূঁইয়া বলেন, ‘এ ঘটনায় প্রতিকার চেয়ে গত ১ জুলাই পুলিশ মহাপরিদর্শক ও ডিএমপি কমিশনার বরাবর আবেদন কার হলেও তাতে সাড়া না পাওয়ায় হাইকোর্টে রিট আবেদন করা হয়। আদালত শুনানি নিয়ে ওই পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়ে ১৫ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন। আদালত নির্দেশনার পাশাপাশি রুল জারি করেছে। রুলে ওই পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চাওয়া হয়েছে।’

জীবন/আওয়াজবিডি