জয়া বচ্চনের আহ্বান

'ধর্ষকদের পিটিয়ে মারুন'


'ভয়াবহতা প্রকাশের শব্দ জানা নেই'

হায়দরাবাদে ২৭ বছর বয়সী একজন পশুচিকিৎসক নারীকে ধর্ষণ শেষে হত্যাকাণ্ডকে কেন্দ্র করে তীব্র ক্ষোভ দেখা দিয়েছে ভারতে। পুরো ভারতে এ নিয়ে যখন নিন্দা, ক্ষোভ প্রকাশ করা হচ্ছে তখন ধর্ষকদের পিটিয়ে মারার আহ্বান জানিয়েছেন সমাজবাদী পার্টির এমপি জয়া বচ্চন। রাজ্যসভায় ওই ঘটনার নিন্দা জানাতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন এআইএডিএমকে দলের এমপি বিজিলা সত্যনাথ। নিন্দা, ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অনেক এমপি। ধর্ষকদের মৃত্যুদন্ড দাবি করা হয়েছে। জবাবে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেছেন, এ ঘটনা ভারতকে লজ্জায় ফেলেছে। কঠোর শাস্তি হবে ধর্ষকদের। এ খবর দিয়েছে অনলাইন এনডিটিভি।

এতে বলা হয়, দেশজুড়ে যে অসহনীয় ক্ষোভ বিরাজ করছে তার সঙ্গে সুর মিলিয়েছেন জয়া বচ্চন। তিনি রাজ্যসভায় বলেছেন, এই রকম মানুষদের (তেলেঙ্গানায় ধর্ষণে অভিযুক্তরা) প্রকাশ্যে আনা প্রয়োজন এবং তাদেরকে গণপিটুনি দিয়ে মেরে ফেলা উচিত। তিনি আরো বলেন, আমি মনে করি সরকারের কাছে যথাযথ ও সুনির্দিষ্ট উত্তর দাবি করার জন্য জনগণের কাছে এটাই সময়।

উল্লেখ্য, বুধবার রাতে হায়দরাবাদে পশুচিকিৎসক ওই যুবতীকে ধর্ষণ শেষে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় চারজনকে অভিযুক্ত করা হয়। এনডিটিভির হাতে আসা ডকুমেন্টে পুলিশ বলেছে, এই ন্যাক্কারজনক অপরাধ পরিকল্পনা মতো ঘটিয়েছে অভিযুক্তরা। তারা ওই যুবতীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে। তারপর আগুন দিয়ে দেহ পুড়িয়ে দিয়েছে। এর আগে নয়া দিল্লিতে চলন্ত বাসে একজন মেডিকেল পড়ুয়া ছাত্রীকে ধর্ষণ শেষে হত্যা করা হয়। সেই ঘটনা পুরো ভারতকে নাড়িয়ে দেয়। তারপরও অনেক ধর্ষণ ঘটানো হয়েছে। তবে সর্বশেষ ওই যুবতীকে ধর্ষণ নিয়ে উত্তাল হয়ে উঠেছে চারদিক।

এ নিয়ে রাজ্যসভায় জয়া বচ্চন বলেন, আমি জানি না এই রকম অপরাধের পর আর কতবার আমাকে দাঁড়াতে হবে, বক্তব্য দিতে হবে। আমি মনে করি নির্ভয়া অথবা কাঠুয়া অথবা তেলেঙ্গানায় যেখানেই হোক এই যে অপরাধ, এর জন্য জনগণ সরকারের কাছ থেকে যথাযথ ও সুনির্দিষ্ট উত্তর চায়।

জয়া বচ্চন প্রশ্ন রাখেন, সরকার কি করেছে? তারা কিভাবে এ পরিস্থিতিকে মোকাবিলা করেছে? ভিকটিমদের জন্য কিভাবে ন্যায়বিচার করা হয়েছে? আমি নাম বলতে চাই না। কিন্তু নিরাপত্তার বিষয়টিকে কি দায়ী করা উচিত হবে না? আমার মনে হচ্ছে, একই ঘটনা একদিন আগে ঘটেছে তেলেঙ্গানায়। কেন এটা বন্ধ হচ্ছে না? তিনি এ সময় জনগণের প্রতি আহ্বান জানান, যেসব মানুষ নারী ও শিশুদের এসব ভয়াবহ অবমাননা থেকে রক্ষা করতে ব্যর্থ হয়েছে তাদের নাম প্রকাশ করে লজ্জিত করা উচিত। এ নিয়ে শুধু জয়া বচ্চন একাই কড়া প্রতিবাদ জানান নি।

নারী ও শিশুরা কেন নিরাপদ নয় একথা বলতে বলতে কান্নায় ভেঙে পড়েন এআইএডিএমকে দলীয় এমপি ভিজিলা সত্যনাথ। জরুরি ভিত্তিতে সামাজিক সংস্কারের জন্য কেন্দ্রীয় ও রাজ্য সরকারগুলোকে একসঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন কংগ্রেসের অমি ইয়াগনিক। আরো কড়া নিন্দা জানিয়েছেন রাষ্ট্রীয় জনতা দলের মনোজ কুমার ঝা, বিজেপির আরকে সিনহা। ধর্ষকদের ফাঁসির আহ্বান জানিয়ে তারা পার্লামেন্টকে স্মরণ করিয়ে দেন যে, ২০১২ সালে দিল্লিতে যে গণধর্ষণ ও পরে হত্যাকা- হয়েছিল তাতে দোষীদের মৃত্যুদন্ডের শাস্তি ঘোষিত হয়েছে। কিন্তু দীর্ঘ আপিল প্রক্রিয়ায় সেই ফাঁসি এখনও কার্যকর হয় নি।

পার্লামেন্টের উভয় কক্ষের এমপিরা এই ধর্ষণ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন এবং কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থার আহ্বান জানিয়েছেন। এর জবাবে লোকসভায় প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেছেন, এমন হায়েনার মতো অপরাধকে কমিয়ে আনতে প্রতিটি পরামর্শ বা সাজেশনের জন্য উন্মুক্ত কেন্দ্রীয় সরকার। এক্ষেত্রে প্রয়োজন হলে তিনি আইন সংশোধনের কথা বলেন। কঠোর আইন বাস্তবায়ন নিশ্চিত করতে আমরা যেকোনো কিছু করতে আগ্রহী। রাজনাথ সিং ওই পশুচিকিৎসক যুবতী ধর্ষণ ও হত্যার বিষয়ে বলেন, এই অপরাধ পুরো দেশকে লজ্জিত করেছে। সবার জন্যই এটা লজ্জার বিষয়। অভিযুক্তদের অবশ্যই কঠোর শাস্তি দেয়া হবে। এই অপরাধ কতটা ভয়াবহ তা প্রকাশ করার মতো শব্দ আমার কাছে নেই।

এনডিটিভি লিখেছে, তেলেঙ্গানার ঘটনায় সারাদেশে ব্যাপক প্রতিবাদ, ক্ষোভ প্রকাশ করা হচ্ছে। সারাদেশে শোক ছড়িয়ে পড়েছে। এতে আরো বলা হয়, অভিযুক্তদের বয়স ২০ থেকে ২৬ বছরের মধ্যে। তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ওদিকে দায়িত্বে অবহেলার জন্য তিনজন পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

জীবন/আওয়াজবিডি